সকাল ৯:১৭ মঙ্গলবার ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ ২৯শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি

হোম দেশ সবজিতে স্বস্তি, কমেছে আলু-পেঁয়াজের দাম

সবজিতে স্বস্তি, কমেছে আলু-পেঁয়াজের দাম

লিখেছেন sayeed
Spread the love

কিছুদিন আগে সবজির দাম নিয়ে হা হুতাশ করছিলেন ক্রেতারা। তবে এখন বেশিরভাগ সবজি এখন ৩০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে। দাম কমে আসায় কিছুটা স্বস্তি এসেছে। বাজারে ২০ টাকা কেজি দরেই পাওয়া যাচ্ছে নতুন আলু ও দেশি পাকা টমেটো। এর সঙ্গে পেঁয়াজের দামও ক্রেতাদের স্বস্তি দিচ্ছে।

বাজারের বিক্রেতারা বলছেন, বাজারে এখন সব ধরনের শীতের সবজি ভরপুর। ফুলকপি, বাঁধাকপি, শালগম, মুলা, বেগুন, পাকা টমেটো কোনো কিছুর কমতি নেই। দিন দিন এসব সবজির সরবরাহ বাড়ছে। ফলে দাম কমছে। সামনে দাম আরও কমবে।

শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজারে ভালো মানের দেশি পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা। দুই কেজি নিলে কোনো কোনো বিক্রেতা ৭৫ টাকা রাখছেন। অথচ কিছুদিন আগেই দেশি পেঁয়াজের কেজি ছিল ৭০ টাকা।

পেঁয়াজের দামের বিষয়ে কারওয়ান বাজারের পেঁয়াজ ব্যবসায়ী নোয়াব আলী বলেন, বাজারে এখন দেশি পেঁয়াজের অভাব নেই। আমরা পাইকারিতে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি করছি ৩৫ টাকা। এখন দিন দিন বাজারে ভালোমানের দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ বাড়বে। সুতরাং সামনে পেঁয়াজের দাম আরও কমতে পারে।

রামপুরার ব্যবসায়ী মো. আজম বলেন, ভালো মানের দেশি পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা। আর আমদানি করা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকা কেজি। সবাই দেশি পেঁয়াজ কিনছেন। আমদানি করা পেঁয়াজের চাহিদা নেই।

এদিকে কিছুদিন আগে ৪০-৫০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া নতুন আলু এখন মানভেদে ২০-২৫ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। সবচেয়ে ভালো মানের নতুন আলু কোনো কোনো বিক্রেতা দুই কেজি ৪৫ টাকায় বিক্রি করছেন।

মালিবাগ হাজীপাড়ার ব্যবসায়ী নূর আলী বলেন, কিছুদিন আগেও এক কেজি নতুন আলু ৫০ টাকা কেজি বিক্রি করেছি। এখন ৪৫ টাকা দিয়ে দুই কেজি আলু পাওয়া যাচ্ছে। এই আলু আগের চেয়ে অনেক বড় এবং মানও ভালো। আগে যে সাইজের আলু ৫০ টাকা কেজি ছিল এখন তা ১৮-২০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে।

আলু-পেঁয়াজের মতো স্বস্তি দিচ্ছে পাকা টমেটো। কিছুদিন আগে পাকা টমেটোর কেজি ছিল ১০০ টাকার ওপরে। এখন তার থেকে ভালো মানের পাকা টমেটো ২০-৩০ টাকা কেজিতে পাওয়া যাচ্ছে। স্বস্তি দিচ্ছে অন্যান্য সবজির দামও।

শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৪০ টাকা। ফুলকপি ও বাঁধাকপির পিস বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ২০ টাকা। এছাড়া মুলা ১০ থেকে ১৫ টাকা, গাজর ৩০ থেকে ৫০ টাকা, বেগুন ২০ থেকে ৩০ টাকা, উস্তা ৩০ থেকে ৪০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। ৪০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে বড় লাউ।

খিলগাঁওয়ের বাসিন্দা আমির হোসেন বলেন, সবজির দাম নিয়ে যে অশান্তি ছিল এখন তা আর নেই। টমেটোর কেজি ২৫ টাকা কিছুদিন আগে এটা কল্পনাও করা যেত না।সবকিছুর দাম ছিল অস্বাভাবিক। সবজির দাম শুনলেই মাথা গরম হয়ে যেত। কিন্তু এখন সব ধরনের সবজি কম দামে পাওয়া যাচ্ছে।

কারওয়ান বাজারের সবজি ক্রেতা বলেন, ফুলকপি ১০ টাকা, বাঁধাকপি ১৫ টাকা, শিম ২০ টাকা, পাকা টমেটো ২০ টাকা কেজি— সবজির এমন দাম হবে কিছুদিন আগে ভাবাই যায়নি। বেশিরভাগ সবজির কেজি একশ টাকার কাছাকাছি ছিল। এখন ১০০ টাকা দিয়ে ব্যাগ ভরে বাজার করা যায়।

এদিকে সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে ভোজ্যতেলের দাম। বাজারে খুচরা প্রতি লিটার তেলের দাম দুই থেকে পাঁচ টাকা বেড়েছে। এছাড়া দাম বেড়েছে চিনির।

তেল বিক্রেতা বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের ব্যারেল প্রতি দাম বেড়েছে। এ কারণে সপ্তাহের ব্যবধানে আবার খুচরা বাজারে লিটার প্রতি দুই টাকা থেকে পাঁচ টাকা বেড়েছে। একই সঙ্গে তেলের উৎপাদন কমেছে। আন্তর্জাতিক বাজারে এ কারণে ভোজ্যতেলের দাম বাড়তে শুরু করেছে। তাই ভোজ্যতেলের দাম আরও বাড়বে।

You may also like

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More