সকাল ১০:০৯ মঙ্গলবার ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ ২৯শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি

হোম দেশ ‘কাদের সাহেব আমাকে রাজনীতিতে এগোতে দেননি’

‘কাদের সাহেব আমাকে রাজনীতিতে এগোতে দেননি’

লিখেছেন sayeed
Spread the love

ওবায়দুল কাদের আমাকে রাজনীতিতে এগোতে দেয়নি বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়রপ্রার্থী আবদুল কাদের মির্জা। রোববার (১০ জানুয়ারি) বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে ৯নং ওয়ার্ড হাজীপাড়ায় এক পথসভায় এসব কথা বলেন।

আবদুল কাদের বলেন, ওবায়দুল কাদের সাহেব ঘরে ঘরে চাকরি দেবেন বলেছেন, সে চাকরি এখন কোথায়? এ কথা বললে আমি পাগল, উন্মাদ। কাদের সাহেব আমাকে এগোতে দেননি। অসুস্থ হলে ঢাকায় ভর্তি হতে গেলে তিনি আমাকে চট্টগ্রাম ভর্তি হতে বলেন। ঢাকায় ভর্তি হলে যদি আমি বড় নেতা হয়ে যাই- এই ভয়ে।

ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশে আবদুল কাদের মির্জা বলেন, ওবায়দুল কাদের সাহেবকে আগামীতে জিততে হলে আরও সতর্ক হতে হবে। নিজের বউকে সামলাতে হবে। সঙ্গে যারা চলে, তাদের ওপর নজর রাখতে হবে, কে কোথায় থেকে মাসোয়ারা নেয় সে দিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে।

তিনি বলেন, কাদের সাহেব আমার সঙ্গে নেই, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ আমার সঙ্গে নেই, নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগ আমার সঙ্গে নাই, ডিসি, এসপি আমার সঙ্গে নেই। তবে আমার সঙ্গে জনগণ আছে। ওবায়দুল কাদের সাহেব বলেন, আমি অসুস্থ, মরে যাব; এ কথাগুলো শুনলে আমি দুর্বল হয়ে যাই। তোদের ওপর আল্লাহর গজব পড়ুক কেন্দ্রীয় থেকে এ পর্যন্ত যারা এগুলো করছে।

তিনি বলেন, চারদিকে বারুদের গন্ধ পাই, অস্ত্রের ঝনঝনানি শুনি, যে কোনো সময় আমার জীবন বিপন্ন হতে পারে। পত্রপত্রিকা আসলগুলো লেখে না, এডিট করে আমার কথা বিকৃত করে। এগুলো প্রধানমন্ত্রী ও আমাদের মন্ত্রীর নিকট পাঠিয়ে আমার বিরুদ্ধে ক্ষেপিয়ে তুলছে। পনেরো আনা মানুষ আমার প্রশংসা করে এক আনা মানুষ আমার সমালোচনা করে।

আব্দুল কাদের বলেন, নোয়াখালীর ডিসি, এসপি, জেলা নির্বাচন অফিসার আজ ষড়যন্ত্র করছে। আমাদের নেতাদের অনেকের গায়ের জোর ও বল সবসময় থাকবে না। জননেত্রী শেখ হাসিনার নিকট আমার আবেদন, আপনার বাবা এ দেশ স্বাধীন করেছেন, আপনি পারবেন এ দেশের মানুষের ভোটের অধিকার দিতে।

You may also like

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More