বিকাল ৩:৫৭ শনিবার ৯ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ ২৮শে সফর, ১৪৪৪ হিজরি

হোম দেশ কথা রাখেনি ভারত

কথা রাখেনি ভারত

লিখেছেন মামুন শেখ
কথা রাখেনি ভারত-durantobd.com
Spread the love

পেঁয়াজ রপ্তানির বিষয়ে বাংলাদেশকে দেয়া কথা রাখেনি ভারত। কথা ছিলো, কোনো কারণে রপ্তানি বন্ধ করলে তা আগেভাগেই বাংলাদেশকে জানাবে তারা। কিন্তু কথা রাখেনি ভারত।

দুদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বিবেচনায় গত বছর এ সংক্রান্ত একটি অলিখিত সমঝোতা হয় বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে।

বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) আকস্মিকভাবে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা দেয় দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। হঠাৎ এমন পদক্ষেপে ক্ষুব্ধ বাংলাদেশ তাই অলিখিত ওই সমঝোতার কথা মনে করিয়ে দিয়ে ভারতকে এরইমধ্যে দুইটি চিঠি দিয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে দেয়া চিঠিতে তাদের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের অনুরোধ জানানো হয়েছে।

সময় টেলিভিশনের অনলাইনের খবরে বলা হয়েছে, দুটি চিঠির একটি ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশনকে এবং আরেকটি সরাসরি দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পৌঁছে দেয়া হয়েছে দিল্লির বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে।

চিঠিতে যা বলা হয়েছে

ভারতীয় হাইকমিশনে দেয়া চিঠিতে বলা হয়েছে, গত ১৪ সেপ্টেম্বর ভারতের বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয় পেঁয়াজ রফতানি বিষয়ে হঠাৎ করে যে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে, সে বিষয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছে বাংলাদেশ। বিষয়টি বাংলাদেশের বাজারে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে।

বাংলাদেশ সম্মানের সঙ্গে জানাতে চায় যে, চলতি বছরের ১৫-১৬ জানুয়ারি দুইদিনব্যাপী বাংলাদেশ-ভারত বাণিজ্য সচিব পর্যায়ের যে বৈঠক হয়েছিল, সেই বৈঠকে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য পণ্যের ওপর নিষেধাজ্ঞা না দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ ভারতকে অনুরোধ করেছিল। বাংলাদেশ আরও অনুরোধ করেছিল যে, নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য পণ্যের ওপর যদি নিষেধাজ্ঞা দিতেই হয়, তাহলে বাংলাদেশকে যেন আগাম জানানো হয়। এই বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত বছর অক্টোবরে ভারতে ভিভিআইপি সফরেও তুলেছিলেন এবং তখনও অনুরোধ করা হয়েছিল যে, এমন ঘটনা ঘটলে তা যেন আগাম জানানো হয়।

আরো পড়ুন:

যে কারণে পেঁয়াজ দেয়া বন্ধ করলো ভারত

বাংলাদেশ থেকে ইলিশ গেলেই পেঁয়াজ দেয়া বন্ধ করে ভারত!

চিঠিতে ভারতকে মনে করিয়ে দেয়া হয়, দুই বন্ধুপ্রতিম দেশের মধ্যে গত ২০১৯ এবং ২০২০ সালে যে কথা এবং সমঝোতা হয়েছিল, ভারত সরকারের ১৪ সেপ্টেম্বরের ঘোষণা, সেই কথা এবং সমঝোতার প্রতি যথাযথ সম্মান দেখাতে পারেনি। দুই দেশের সম্পর্কের মধ্যে যে সোনালি অধ্যায় বিরাজ করছে, বাংলাদেশ সেই সম্পর্কের খাতিরে হাইকমিশনের মাধ্যমে ভারতের যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে বাংলাদেশে আবার পেঁয়াজ রফতানি চালুর অনুরোধ জানাচ্ছে।

ভারতকে সিদ্ধান্ত পরিবর্তের অনুরোধ করার পাশাপাশি সঙ্কট সামাল দিতে অন্যান্য দেশ থেকেও পেঁয়াজ আমদানি প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে সরকারের পক্ষ থেকে।

এরিমধ্যে মিয়ানমার, তুরস্ক এবং মিশর থেকে পেঁয়াজ আনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

You may also like

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More