বিকাল ৫:৩০ মঙ্গলবার ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ ৫ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

হোম দেশ শোকের মাসে প্রতিক্ষণ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নানা কর্মসূচী

শোকের মাসে প্রতিক্ষণ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নানা কর্মসূচী

লিখেছেন kajol khan
protkkhon_durantobd
Spread the love

 

এ,আর,ডাবলু: চুয়াডাঙ্গা (জীবননগর) প্রতিনিধি

বর্তমান প্রজন্মের তরুণ ও যুবদের অভিনব ডিজিটাল ব্লাড ডোনেটিং অনলাইন সংগঠন প্রতিক্ষণ ব্লাড রিজার্ভেশন অব বাংলাদেশ।

বর্তমান করোনা ভাইরাস কোভিড ১৯ প্রাদুর্ভাবে বিশ্ব যখন নিস্তব্ধ যেখানে প্রতিটি মানুষই তার বা পরিবার নিরাপদ নিয়ে সন্দিহান সেই সময়ই প্রতিক্ষণ ব্লাড রিজার্ভেশন অব বাংলাদেশের রক্তযোদ্ধা সৈনিকরা মূমুর্ষদের জীবন বাঁচাতে রক্তদান করে যাচ্ছে। ২০২০ সালের শুধু মাত্র শোকের মাস আগস্টেই ৬০২ ব্যাগ রক্তদান করা হয় এ পর্যন্ত এটাই একমাসে সর্বোচ্চ রক্তদান।

এ পর্যন্ত প্রতিক্ষণ ব্লাড রিজার্ভেশন অব বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্বেচ্ছায় রক্তদানের সংখ্যা প্রায় ৪,৪৯৮ ব্যাগ।

“এই পৃথিবীকে যে অবস্থায় পেয়েছি, তার চেয়েও সুন্দর রেখে যেতে চাই”

এই স্লোগানকে সামনে রেখে প্রতিক্ষণ যুব ফাউন্ডেশনের অধীনে ১ জুন ২০০৯ সালে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন এর মাধ্যমে ১৪ ব্যাগ স্বেচ্ছায় রক্তদানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় প্রতিক্ষণ ব্লাড রিজার্ভেশন অব বাংলাদেশের এর পথ চলা।

কথায় বলে, একটি সুন্দর উক্তি রত্নের চেয়েও মূল্যবান। একটি চমৎকার উক্তি দুর্বলকে যোগায় শক্তি, দিশেহারাকে দেখায় পথ, অন্ধকারে জ্বালায় আলোর মশাল। হতাশা, ব্যর্থতা, গ্লানির তিক্ত অনুভূতিগুলো যখন ঘিরে ধরে তখন ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য সম্বল হয় একটু আশা, একটুখানি সম্ভাবনার হাতছানি। জীবনের কঠিন সময়গুলোতে তোমার মনোবল ধরে রাখতে হৃদয়ে অনুপ্রেরণা যুগিয়ে যাবে যে কাজটি মূমুর্ষদের বাঁচাতে প্রাণ, আসুন করি রক্ত দান।

উল্লেখ্য, বর্তমানে দেশের প্রায় প্রতিটি জেলা ও বিভাগীয় কমিটি স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি ছাড়াও করোনা ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ত্রাণ বিতরণ, বৃক্ষ রোপণ, বাল্যবিবাহ, মাদক ও ধূমপান বিরোধী আন্দোলনসহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে।

উক্ত সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও কেন্দ্রীয় কমিটির সম্মানিত সভাপতি আল সাজিদুল ইসলাম দুলাল বলেন, স্বেচ্ছায় রক্তদানের মধ্য দিয়ে এই রক্তদান সংগঠন প্রতিক্ষণ ব্লাড রিজার্ভেশন অব বাংলাদেশ ফেসবুক পেজের মাধ্যমে রক্ত গ্রহীতা ও রক্ত দাতাদের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপন করে দিচ্ছেন। প্রতিক্ষণ এর একটি কল সেন্টারও রয়েছে যার নম্বর ০১৯১৪৫৮১৭৩৮। রিকুয়েস্ট করলে মুহূর্তের মধ্যেই বার্তা চলে যায় ‘প্রতিক্ষণ সদস্যদের কাছে। রক্ত গ্রহীতার পক্ষ থেকে জানাতে হবে রক্তের গ্রুপ ও হাসপাতালের অবস্থান। যারা রক্ত দিতে আগ্রহী তাঁরা কল সেন্টারে ফোন করে নাম নিবন্ধন করতে পারবেন।

বর্তমানে বাংলাদেশে প্রতিক্ষণ এর প্রতিটি জেলা এবং বিভাগ কমিটি মিলিয়ে সদস্য সংখ্যা প্রায় ৮,৩০০।
স্বেচ্ছাসেবকের সংখ্যা প্রায় ১,৭০০ জন। ১০,০০০ রক্তদাতা বা ডোনারের ডাটাবেজ আছে প্রতিক্ষণ পরিচালনা পর্ষদ এর কাছে। আমাদের লক্ষ্য একটি ফিজিক্যাল ব্লাড ব্যাংক তৈরি করা এবং কমপক্ষে ১ কোটি মানুষের রক্ত সংক্রান্ত তথ্য বা ডাটাবেইজ সংরক্ষণ করা।

প্রতিক্ষণ বর্তমানে গড়ে প্রতিদিন ২০-৩০ জন রোগীর রক্তের প্রয়োজন মেটাচ্ছে, যা রোগীদের জীবন বাঁচাতে বিশেষ সহায়ক ভূমিকা পালন করছে। প্রতিক্ষণ পরিবারের সদস্যদেরসহ প্রান্তিক মানুষের সাহায্য ও সহযোগিতা করাই হচ্ছে PBRB মূল লক্ষ্য। মানুষের কাছে রক্তদাতাকে পৌঁছে দিতে প্রতিক্ষণের ৮ টি বিভাগীয়সহ একটি কেন্দ্রীয় রক্তদান উপ পরিষদ রয়েছে যা মোট ৩৫০ জনের একটি বিশাল টিম কাজ করছে।

‘প্রতিক্ষণ’ এরই মধ্যে অর্জন করেছেন রক্তযোদ্ধা লিডারশীপ এ্যাওয়ার্ড, ওমর একুশে স্মৃতি সম্মাননা, মাধারতেরেসা পদকসহ আরো বেশ কিছু পদক। দেশের প্রতিটি জেলার সদস্যদের মধ্যে সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলে স্বেচ্ছায় রক্তদানে কাজ করার অঙ্গীকার এই সংগঠনের।
সম্প্রতি, আন্তর্জাতিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম “ফেসবুক” অসাধারণ সহযোগিতা নিয়ে বাংলাদেশে ‘প্রতিক্ষণ’এর সাথে যুক্ত হয়েছেন বহু ডক্টর, সামাজিক ও মিডিয়া ব্যক্তিত্বসহ আরো অনেকে ।

প্রতিক্ষণের ওয়েবসাইটে সাধারণ মানুষের ব্যবহারকারীদের জন্য যুক্ত করা হবে ৷ ব্লাড গ্রুপ নামে একটি অপশন যেটা স্ব ইচ্ছায় যে যে ফেসবুককে নিজের রক্তের গ্রুপ এর তথ্য জানাবে, তখন সেই তথ্যটি ফেসবুক সংরক্ষণ করবে। যখন কারও রক্তের দরকার হলে তখনই ফেসবুক নোটিফিকেশন এর মাধ্যমে রক্ত গ্রহীতা ও রক্তদাতাদের যুক্ত করে দিবে।

পরিশেষে সকল রক্তদাতা ও রক্ত সংগ্রহকারীদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে যুব সমাজকে এগিয়ে আসার আহবান করেন অত্র সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আল সাজিদুল ইসলাম দুলাল।

তিনি PBRB আট বিভাগের রক্ত সংগ্রহ উপ পরিশোধের সমন্বয়কারীসহ প্রধান সমন্বয়কারী মোঃ বাতেন হাওলাদারকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সকলের দীর্ঘায়ু ও মঙ্গল কামনা করেন।

You may also like

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More