রাত ৯:০৪ শনিবার ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ ১৫ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

হোম দেশ ২৫ শে জুলাই দিনব্যাপী বঙ্গবন্ধু ডিজিটাল সোশ্যাল ইনোভেশন সামিট

২৫ শে জুলাই দিনব্যাপী বঙ্গবন্ধু ডিজিটাল সোশ্যাল ইনোভেশন সামিট

লিখেছেন sabbri sami
Spread the love

সামাজিক উদ্ভাবনের নানান দিক নিয়ে প্রতিবছর বাংলাদেশ ডিজিটাল সোশ্যাল ইনোভেশন ফোরাম আয়োজন করে ডিজিটাল ইনোভেশন সামিট।

এবার মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে আয়োজনের নামকরণ করা হয়েছে বঙ্গবন্ধু ডিজিটাল সোশ্যাল ইনোভেশন সামিট ২০২০।

বাংলাদেশ সরকারের “ডিজিটাল বাংলাদেশ” বিনির্মাণের সহায়ক ও জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা,দারিদ্র্য বিমোচন,উপযুক্ত কর্মসংস্থান,টেকসই আবাসন সমাধান, সামাজিক সম্পর্ক উন্নয়নের মাধ্যমে শান্তি প্রতিষ্ঠা ও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ এর বিদ্যমান সম্পদের উপযুক্ত ব্যবহার ও উন্নত রাষ্ট্রের ন্যায় শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নতির অগ্রগতির লক্ষ্যে বাংলাদেশ ডিজিটাল সোসাল ইনোভেশন ফোরাম এবং সহআয়োজক হিসেবে এক্সিলেন্স বাংলাদেশ ও আবুল বাশার ফাউন্ডেশন দ্বিতীয় বারের মত অনলাইনে আয়োজন করতে যাচ্ছে ‘বঙ্গবন্ধু ডিজিটাল সোশ্যাল ইনোভেশন সামিট সরাসরি-২০২০’।

আয়োজনে অতিথি হিসেবে যুক্ত হবেন –

১. আকতার উদ্দিন ( হেড অফ ইউ.এন.ভি বাংলাদেশ,
২. মোহাম্মাদ আরিফুজ্জামান (ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও – রিয়েল ক্যাপিটা গ্রুপ
৩. রুদমিলা নওশিন (প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও অফ কনফিগার রবট, পরিচালক র‌্যাঙ্গস গ্ররুপ
৪. সানি সানওয়ার ( সুপারিনটেন্ড অফ পুলিশ – অ্যান্টি টেরোরিজম ইউনিট)
৫. জাভেদ পারভেজ ( ভাইস প্রেসিডেন্ট রবি)
৬. গোলাম সামদানি ডন (সিআইও ডন সামদানি ফেসিলিটেশন এন্ড কনসালটেন্সি)
৭. ইমরান কাদির- ( সহ প্রতিষ্ঠাতা মিশন সেইভ বাংলাদেশ, প্রেসিডেন্ট অফ জেসিআই দক্ষিন ঢাকা।
৮. নাসিমা আক্তার নিশা- (সভাপতি- উইমেন এন্ড ইকমার্স ফোরাম)
৯. নজর এ জিলানী- (সিইও অফ সার্পনার)
১০. আরিফ নিজামী- (প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও অফ প্রিনিয়ার ল্যাব)
১১. কাজি হাসান রবিন- ( প্রতিষ্ঠাতা ওয়াই.ই.এফ গ্লোবাল, প্রফেসর ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ)
১২. নাহিদ হাসান- (প্রতিষ্ঠাতা বিযকপ, হেড অফ পেওনিয়র বাংলাদেশ
১৩. নুসরাত আখতার লোপা – ( প্রতিষ্ঠাতা হুর নসরাত)
১৪. মান্জুর আহমেদ সোহান- ( উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক, রিয়ের ক্যাপিটা গ্রুপ)
১৫. নাসির উদ্দিন পাটোয়ারী- (সম্পাদক ও প্রকাশক, বার্তা বাজার)
১৬. নাফিসা খান- ( একজন বাংলাদেশ )
১৭. পারভেজ হোসেন – ( প্রতিষ্ঠাতা, সহমর্মিতা ফাউন্ডেশন)
১৮. বেনজীর আবরার- ( প্রতিষ্ঠাতা, এক্সিলেন্স বাংলাদেশ)

আয়োজনের মূল উদ্যোক্তা সামিটের প্রধান সমন্বয়ক আলী আকবর আশা বলেন, সামাজিক উদ্ভাবন ও পরিবেশগত চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় মানুষ এবং ডিজিটাল প্রযুক্তিকে একত্রিত করে ডিজিটাল স্যোশাল ইনোভেশন। বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা ও কর্মসংস্থান থেকে শুরু করে গনতান্ত্রিক অংশগ্রহন, মাইগ্রেশন এবং পরিবেশের বিভিন্ন ক্ষেত্র গুলোতে সামাজিক ও পরিবেশগত চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় হাজার হাজার মানুষ, বিভিন্ন প্রকল্প এবং সামাজিক সংস্থা গুলো ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করছে আর মানুষ এবং প্রযুক্তির যৌথ প্রয়াস কে একটি প্ল্যাটফর্মের আওতায় একত্রিত করা কে ডিজিটাল স্যোশাল ইনোভেশন হিসেবে অবহিত করা হয়।

আর এ ব্যাপারে সঠিক দিক-নির্দেশনা প্রদান ও কার্যকরি পদক্ষেপ গ্রহনে বিশেষ ভূমিকা পালন করে ডিজিটাল স্যোশাল ইনোভেশন সামিট। বাংলাদেশ ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন ফোরাম জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন নীতিমালা বাস্তবায়নে সরকারের সহায়ক হিসেবে কাজ করে।

 

You may also like

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More